ব্রেকিং:
দিনাজপুরে দেশের প্রথম লোহার খনি আবিষ্কার শেখ হাসিনা এখন আওয়ামী লীগের চেয়েও বড় নোয়াখালীতে অস্ত্রসহ শীর্ষ জলদস্যু গ্রেফতার সপ্তাহের ব্যবধানে কমলো স্বর্ণের দাম ইবতেদায়ি শিক্ষকদের জন্য আসছে এমপিওভুক্তির সুখবর সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে সব প্রস্তুতি নিয়েছে ইসি: সচিব সাকিব-মাশরাফীদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন এখন শুধু শচীন-পন্টিং-সাঙ্গাকারাকে টপকানোর অপেক্ষা ১৫ হাজার কোটি টাকার সম্পূরক বাজেট পাস শেষ ধাপে ২০ উপজেলায় ভোট চলছে বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড় সাকিব আজ বনভোজন দিবস ব্যাংকে টাকা আছে, লুটে খাওয়ার মতো নেই: প্রধানমন্ত্রী বুয়েট ছাত্রদলের ভিপি ছিলেন বালিশ মাসুদুল হেসে খেলে প্রত্যাশিত জয় টাইগারদের নোয়াখালী সদরে ইভিএমের ক্যাম্পেইন-মাইকিং বিশ্বের সবচেয়ে বড় ব্যাট উন্মোচন আজ উইন্ডিজের বিপক্ষে জয় চান মাশরাফী সমালোচনার মধ্যেও ভদ্রতা থাকতে হয়: তথ্যমন্ত্রী যে কৌশলে আটক হলেন ওসি মোয়াজ্জেম

বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৬ ১৪২৬   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

সর্বশেষ:
তিস্তা চুক্তি ও সীমান্তে হত্যা বন্ধে সহযোগিতার আশ্বাস ভারতের অস্বাভাবিক ক্ষমতাসম্পন্ন শিশুর জন্ম দিলেন কোয়েল মল্লিক! সমৃদ্ধির সোপানে বাংলাদেশের উন্নয়নে কি কি থাকছে প্রস্তাবিত বাজেটে কারাবন্দিদের নাস্তায় যুক্ত হলো উন্নতমানের খাবার যোগ্য সেনা কর্মকর্তাদের পদোন্নতি দিন: প্রধানমন্ত্রী
৪৩০

আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে রোহিঙ্গা ইস্যু উপস্থাপিত হবে

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০১৯  

বাংলাদেশে সফররত জাম্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড.মামাদৌ টাঙ্গারা বলেছেন, আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা ইস্যু তুলে ধরতে তারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।শুক্রবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তিনি এ কথা বলেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

ড. মামাদৌ বলেন, রোহিঙ্গা সংকটে তার দেশ বাংলাদেশকে সহযোগিতা প্রদান অব্যাহত রাখবে, কারণ এটি একটি মানবিক সমস্যা।বাংলাদেশের অসাধারণ উন্নয়ন, বিশেষ করে নারীর ক্ষমতায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করেন তিনি।

শেখ হাসিনার কাছে জাম্বিয়ার রাষ্ট্রপতির একটি চিঠি হস্তান্তর করেন মামাদৌ।জাম্বিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন, তিনি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেছেন এবং একটি বিদেশি অফিস প্রোটোকলে স্বাক্ষর করেছেন।তিনি বলেন, আমরা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে সহযোগিতা করতে আগ্রহী।

১৯৮১ সালের এই দিনে স্বেচ্ছা নির্বাসন থেকে স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পর বাংলাদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য নিজের দীর্ঘ সংগ্রামের কথা স্মরণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার পরিবারের অধিকাংশ সদস্যদের হত্যা করা হয়। সেসময় তিনি ও তার ছোট বোন শেখ রেহানা জার্মানিতে অবস্থান করায় বেঁচে যান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দেশে ফিরে আসার পর গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হয়। এখন দেশের মানুষের অবস্থার উন্নয়নে যথাসাধ্য চেষ্টা করছি।

তিনি উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের জিডিপি ৮.১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং দারিদ্র্যের হার ২১ শতাংশ পর্যন্ত হ্রাস পেয়েছে। গ্রামের মানুষের উন্নয়নের ওপর সম্পূর্ণ গুরুত্ব দিয়েছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের শিল্প উন্নয়নের পাশাপাশি কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে সরকার সারা দেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করছে।

বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী ও মুখ্য সচিব এম নজিবুর রহমান।

নোয়াখালী সমাচার
নোয়াখালী সমাচার
এই বিভাগের আরো খবর