ব্রেকিং:
দেশে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ২৪২৩, মৃত্যু ৩৫ সমুদ্র সম্পদের টেকসই ব্যবহারে প্রধানমন্ত্রীর ৩ দফা প্রস্তাব পেশ প্রধানমন্ত্রীর ৫ নির্দেশনা গার্ডিয়ানে শেখ হাসিনার নিবন্ধ বিজিবিতে যুক্ত হলো অত্যাধুনিক জলযান ৮ জুন ঢাকায় আসবে চীনের করোনা বিশেষজ্ঞ দল পছন্দের শিক্ষকের পাঠদান এখন মোবাইলে অতীতের সব রেকর্ড ছাপিয়ে সর্বোচ্চ রিজার্ভ করোনা ভাইরাসের মধ্যেও থেমে নেই মেগা প্রকল্প ঘরে বসে ২ মিনিটেই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ৭ উন্নয়ন সহযোগীর কাছ থেকে সহায়তা পাচ্ছে বাংলাদেশ আ. লীগ সর্বাত্মক শক্তি নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে করোনা যোদ্ধাদের স্যালুট জানিয়ে দেয়ালচিত্র জীবাণু শঙ্কা-প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিরোধে সদা সচেষ্ট প্রধানমন্ত্রী অতিরিক্ত ভাড়া আদায়কারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা জীবনবাজি রেখে মাঠ পযায়ে কাজ করছে পরিবার পরিকল্পনা কর্মীরা করোনায় ফেনীর কাস্টমস কর্মকর্তার মৃত্যু নোয়াখালীতে ৪ নার্সসহ আরও ৫৯ জনের করোনা সেনবাগে পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু দেশে ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ২৬৯৫, মৃত্যু ৩৭
  • শুক্রবার   ০৫ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২২ ১৪২৭

  • || ১২ শাওয়াল ১৪৪১

৯০৯৩

আইএসআইয়ের সাহায্যে সরকার পতনের আন্দোলনের পরিকল্পনা বিএনপির

নোয়াখালী সমাচার

প্রকাশিত: ২৫ ডিসেম্বর ২০১৮  

কারাবন্দি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও ক্ষমতার লক্ষ্যে সরকার বিরোধী সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোকে সঙ্গে নিয়ে কথিত যুগপৎ আন্দোলন কর্মসূচির নামে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছে বিএনপি। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। নির্বাচনী মনোনয়ন সংগ্রহ করার দিন থেকেই বিভিন্ন বিতর্কে জড়িয়ে দলটি। মনোনয়ন সংগ্রহের সময় থেকেই বিভিন্ন হামলা সহিংসতায় সারাদেশে ভীতিকর পরিস্থির সৃষ্টি করে দলটির কর্মীরা। নির্বাচন বর্জন করতে নানামুখী অপতৎপরতাও শুরু করে দলটি। আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের উপর হামলা, ককটেল বিস্ফোরণ, নির্বাচনী অফিস ভাঙচুরসহ নৈরাজ্যের সৃষ্টি করে বিএনপি-জা্মায়াতের কর্মীরা। গোপন সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে জয়ী হতে না পারলে সরকার পতনের ডাক দিবে দলটি।

এর আগে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে নির্বাচন বর্জনের ডাক দিয়ে সরকার পতনের আন্দোলনে নেমে ব্যর্থ হয় বিএনপি-জামায়াত জোট। নির্বাচনের পূর্বে বিএনপি-জামায়াত জোট সারাদেশে ঘৃণ্য ও পৈশাচিক সন্ত্রাস চালায় সারাদেশে। বিএনপি-জামায়াত জোটের সন্ত্রাস, অগ্নিসংযোগ ও পেট্রোল বোমার শিকার হয়ে নিরীহ বাসড্রাইভার, বাস-টেম্পো-সিএনজি যাত্রী, প্রিজাইডিং অফিসার, পুলিশ-বিজিবি-আনসার, সেনাবাহিনীর সদস্য, এমনকি স্কুলের শিক্ষক ও শিশু নিহত হয়। অনেকে আগুনে দগ্ধ হয়েছেন, জীবনের তরে পঙ্গুত্ব বরণ করেন। যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা এবং বিএনপি নেত্রীর আদালত হাজিরায় অনুপস্থিত থাকার উদ্দেশ্যে বিএনপি-জামায়াত অনির্দিষ্টকালের অবরোধ করে সারাদেশে তাণ্ডব ও হত্যাযজ্ঞ শুরু করে। পেট্রোলবোমায় পাঁচশো’র অধিক মানুষ নিহত এবং এক হাজার ১৮০ জন আহত হয়। দুই হাজার ৯০৩টি গাড়ি, ১৮টি রেল গাড়ি ও ৮টি লঞ্চে আগুন দেয়া হয়। পরিকল্পিতভাবে টার্গেট করে ৭০টি সরকারি অফিস ও স্থাপনা ভাঙচুর এবং ৬টি ভূমি অফিস পুড়িয়ে দিয়ে সারা দেশজুড়ে বিভীষিকাময় পরিস্থিতির জন্ম দিয়েও সরকার পতনে ব্যর্থ হয় বিএনপি-জামায়াত জোট।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচন বর্জন ও সরকার পতনে ব্যর্থ হয়ে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচনে অংশগ্রহন করে সরকার পতনের ডাক দেয়ার পরিকল্পনা করে দলটি। নির্বাচনে জয়ী না হলে সারাদেশে আবারো ব্যাপক সহিংসতা চালিয়ে দেশে-বিদেশে অপপ্রচার চালিয়ে সরকার পতনের আন্দোলনে নামবে দলটি যা দলের বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। বিদেশে এরই মধ্যে বিভিন্ন লবিং শুরু করেছে বিএনপির নেতারা। মনোনয়ন বাণিজ্যের মাধ্যমে আয়কৃত অর্থের একটি বিশাল অংশ এই লবিংয়ে ব্যয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলের নেতারা। এজন্য আমেরিকার একটি কোম্পানীকে এই লবিংয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন দলের একাধিক সিনিয়র নেতা। সরকার পতনের জন্য বিএনপি-জামায়াতের এই পরিকল্পনাকে বাস্তবায়ন করবে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিস ইন্টেলিজেন্স (আইএসআই)। মোশারফ হোসেনের সাথে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিস ইন্টেলিজেন্স (আইএসআই) এজেন্ট মেহমুদের ফোনালাপ যা ইতোমধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ভাইরাল। বিএনপি নেতা মোশারফ হোসেনকে সরাসরি পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার এজেন্টের নিকট সাহায্য চাইতে শোনা যায়। বিএনপিকে একমাত্র বন্ধু উল্লেখ করে পাকিস্তানি এজেন্ট মেহমুদ বিএনপিকে নির্বাচনে জেতাতে সব ধরণের সাহায্যের আশ্বাসের কথা শোনা যায়। বিদেশে বসে পাকিস্তানি এজেন্টদের সাথে মিটিং, চীনের গোয়েন্দা সংস্থার সাথে যোগাযোগের জন্য মেহমুদের কাছে সাহায্য চান মোশারফ হোসন। এর আগেও তারেক রহমানের সাথে আএসআই এর সাথে বৈঠকের খবর প্রকাশিত হয় বিভিন্ন গণমাধ্যমে।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই এর পরামর্শ অনুযায়ী নির্বাচনে জয়ী হতে না পারলেই সহিংস আন্দোলনের মাধ্যমে আবারো সরকার পতনের আন্দোলনে নামবে বিএনপি-জামায়াত জোট। আর এই আন্দোলনের প্রধান পৃষ্ঠপোষকতায় থাকবে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই।

রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর